দিল্লিতে ধর্ষণের শিকার ৮৬ বছরের বৃদ্ধা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের রাজধানী শহর দিল্লিতে ৮৬ বছরের বৃদ্ধাকে ধর্ষণের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দিল্লি পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, বৃদ্ধা বাড়ির বাইরে গোয়ালার কাছ থেকে দুধ নেয়ার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি তাকে জোর করে একটি ফাঁকা মাঠে নিয়ে যায়।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মর্মান্তিক ওই ঘটনাটি ঘটে গত সোমবার সন্ধায়। দিল্লি পুলিশের অতিরিক্ত সহকারী পুলিশ কমিশনার আর পি মীনা বলেন, ওইদিন বৃদ্ধা যখন বাড়ির বাইরে অপেক্ষা করছিলেন তখন সোনু নামের ৩২ বছর বয়সী এক ব্যক্তি তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

মীনা সিএনএনকে বৃহস্পতিবার বলেন, ‘অভিযুক্ত ব্যক্তি তাকে (বৃদ্ধাকে) তার দু’চাকার গাড়িতে উঠতে ছলনার আশ্রয় নেয়। বৃদ্ধাকে ওই ব্যক্তি বলেছিল যে, সে একজনের কাছে টাকা ফেরত চাইতে যাবে কিন্তু এমন গেলে দেবে না। যদি তার সঙ্গে কোনও বৃদ্ধা থাকে তবে তারা হয়তো সহানুভূতি প্রকাশ করে টাকাটা ফেরত দেবে।’

তিনি আরও জানান, এর কিছুক্ষণ পর প্রতিবেশীরা সাহায্য চেয়ে বৃদ্ধার চিৎকার শুনতে পেলে পুলিশকে খবর দেন। ঘটনাস্থলে হাতেনাতে ধরা পড়ে অভিযুক্ত ধর্ষক। এরপর পুলিশ এসে তাকে আটক করে। ধর্ষণের অভিযোগে তিশোর্ধ্ব ওই যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন আর পি মীনা।

ঘটনার পর আহত বৃদ্ধাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তবে তার শরীরের জখম তেমন গুরুতর ছিল না। এ জন্য হাসপাতালে ভর্তি করানোর একদিন পর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল হলে তাকে বাড়ি পাঠানো হয়েছে। বৃদ্ধার ধর্ষণের এ ঘটনায় চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে দিল্লি কমিশন ফর উইমেনের মতো বেশ কিছু সংগঠন।

ভারতে প্রতি বছর হাজার হাজার নারী ধর্ষণ-গণধর্ষণের শিকার হন। এর মধ্যে কিছু নৈতিকতা ও বিবেকবোধের চরম সীমাও ছড়িয়ে যায়। ভারতীয় আইন অনুযায়ী, ধর্ষণে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সম্ভাব্য সাজার বিধান রয়েছে। বারবার ধর্ষণ, গণধর্ষণকারী কিংবা নাবালিকাকে ধর্ষণের দোষী ব্যক্তিদের মৃত্যুদণ্ডও দেয়া যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *